বিনোদন

ধর্মেন্দ্রর সঙ্গে সম্পর্কে থাকাকালীন হেমার রূপে মুগ্ধ হয়ে সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দেন এই অভিনেতা

বলিউড অভিনেতা ধর্মেন্দ্র(Dharmendra) ও ‘ড্রিমগার্ল’ হেমা মালিনীর(Hema Malini) প্রেমকাহিনী জানেননা এমন মানুষ খুব কমই আছেন। অনস্ক্রিন হোক বা অফস্ক্রিন তাদের জুটি ছিল রীতিমতো সুপারহিট। যদিও ওই অভিনেতা বিবাহিত ছিলেন, তবে কাজের মাঝেই তিনি হেমার প্রেমে পড়েন। দীর্ঘ পাঁচ বছর তাদের প্রেমের সম্পর্ক যেন ছিল সিনেমার মতোই। কারণ বিবাহিত ধর্মেন্দ্রকে মেনে নিতে চাননি হেমার পরিবার।

এই বিষয়ে শোনা যায়, হেমার পরিবারের লোকেরা চেয়েছিলেন জিতেন্দ্রর সাথে হেমার বিয়ে হোক। যেই কারণে করা হয়েছিল সমস্ত আয়োজন। শুধু তাই নয় উপস্থিত ছিলেন ম্যারেজ রেজিস্ট্রার, আত্মীয়েরা। তবে সেই সময় মদ্যপ অবস্থায় সেখানে উপস্থিত হন ধর্মেন্দ্র। এমনকি তাকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দিতে চেয়েছিলেন হেমার বাবা। বলেছিলেন একজন বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে তিনি তার মেয়ের বিয়ে দেবেন না।

এই অবস্থায় ধর্মেন্দ্র(Dharmendra) অনুরোধ করেন তার সাথে একবার যেন হেমার(Hema Malini) দেখা করানো হয়। হেমা কাঁদতে কাঁদতে বাইরে বেরিয়ে এলে তাকে জিজ্ঞেস করা হয় তিনি জিতেন্দ্রকে বিয়ে করবেন কি না। উত্তরে হেমা ‘না’ বলেছিলেন। অবশেষে ১৯৭৯ সালের ২১শে আগস্ট সামাজিক মতে বিয়ে করেন তারা। এরপর থেকে তাদের প্রেম-কাহিনী চিরকাল স্মরণীয় হয়ে রয়েছে। অন্যদিকে হেমার প্রেমিকের তালিকায় ছিলেন আরও একজন।

তার নাম রাজ কুমার(Raaj Kumar)। ১৯৫৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘মাদার ইন্ডিয়া’য় অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন তিনি। পাশাপাশি তাকে দেখা গিয়েছে ‘পয়গাম’, ‘দিল এক মন্দির’, ‘কাজল’, ‘নীল কমল’ সিনেমায়। তখনকার সময়ে রাজ কুমার নিজেই ঠিক করতেন তিনি কোন অভিনেত্রীর সাথে কাজ করবেন। তাইতো ‘লাল পাথর’ সিনেমায় বৈজন্তীমালার বদলে হেমাকে নেওয়ার জেদ করেন।

তাতে সফলও হন, ওই সিনেমায় নেওয়া হয় হেমা মালিনীকেই। যেহেতু প্রথম দেখাতেই রাজ প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন ওই অভিনেত্রীর। তাইতো ছবি মুক্তি পাওয়ার পরই তাকে সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন রাজ। তবে তার উত্তরে হেমা জানান, তিনি কেবল রাজ কুমারের অভিনয়ের ভক্ত, এর বেশি তিনি কিছু ভাবেননি। শুধু তাই নয়, ধর্মেন্দ্রর কথাও তিনি বলেন। এভাবেই দুজন দুজনের থেকে সরে আসেন তারা।

Related Articles