অফবিটনিউজ

ঠাকুমার বলা এই কথা মেনে চলেই আজ তিনি এতটা সফল, জন্মদিনে জানিয়েছেন রতন টাটা

টাটা কোম্পানির কর্ণধার রতন টাটা(Ratan Tata) ৮৩ বছর সম্পূর্ণ করলেন। তিনি তার পূর্বপুরুষদের সূত্রে একটিমাত্র জিনিস পেয়েছিলেন আর তা হল টাটা উপাধি। তার বাকি সব কিছুই তিনি নিজের পরিশ্রমের দ্বারা অর্জন করেছেন। রতন টাটার নাম আজ গোটা দেশ ছাড়িয়ে বিশ্বমঞ্চে প্রতিষ্ঠিত। তার বাবা ও মা’য়ের যখন বিবাহবিচ্ছেদ তখন তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন তার ঠাকুমা। খুব ছোট থেকেই পারিবারিক সমস্যার জন্য জেরবার ছিলেন তিনি।

বাবা ও মা’য়ের বিচ্ছেদের সময় রতন টাটার বয়স ছিলো ১০ বছর। তখন যদি তার ঠাকুমা না থাকতো তাহলে হয়তো আজ তিনি রতন টাটা হয়ে উঠতে পারতেন না। তখন সালটা ছিল ১৯৪৮। রতন টাটাকে নিজের কাছে রাখবেন বলে ঠিক করেন ঠাকুমা নবজিভাই। ঠাকুমা কখনও রতন টাটা ও তার ভাইকে বাবা ও মা’য়ের অনুপস্থিতি বুঝতে দেননি। তাই তিনি জীবনের পথে চলতে গেলে ঠাকুমার কথার গুরুত্ব দেন।

আর ঠাকুমার কথাগুলি তাকে জীবনের পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছে একথা বারংবার একাধিক মঞ্চে স্বীকার করেছেন রতন টাটা। তার ঠাকুমা কী বলতেন যা তাকে জীবনের পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করল! একটি সাক্ষাৎকারে টাটা কোম্পানির কর্ণধার রতন টাটা জানিয়েছেন, “বাবা ও মায়ের বিবাহবিচ্ছেদের পর সেই স্থান পূরণ করেছেন ঠাকুমা।

মা’য়ের দ্বিতীয় বার বিবাহের পর স্কুলে গেলে অনেক কটূ কথা শুনতে হত। কিন্তু সেইসব কটূ কথার পাল্টা জবাব দিতে বারণ করতেন ঠাকুমা। ঠাকুমা বলতেন, সকলের কাছে নিজের মর্যাদা রক্ষা করাটাই সবথেকে বড় বিষয় “।

Related Articles