লাইফ স্টাইল

Kali Puja Recipe : পুজোর মরশুমে বাড়িতে বসে বানিয়ে ফেলুন নিরামিষ পাঠার মাংস, রইল রেসিপি

বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। আজ একটা পুজো তো ক’দিন বাদে আরেকটি পুজো। পুজো মানে যেমন ভগবানকে স্মরণ করা তেমনি তার সঙ্গে চলে খাওয়াদাওয়া। সদ্য শেষ হয়েছে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পুজো আর এই পুজো ঘিরে রয়েছে যেমন হইহট্টগোল তেমনি রয়েছে জমিয়ে খাওয়াদাওয়া। দুর্গা পুজোর পরই আসছে কালী পুজো। আর এই কালী পুজোতে বানিয়ে ফেলুন নিরামিষ পাঠার মাংস।

অবাক হচ্ছেন? মাংস নিরামিষ হয় তা শুনে অবাক হওয়ারই কথা। কিন্তু পাঠার মাংস নিরামিষ উপায়ে রান্না করা যায়। কালী পুজোতে ঠাকুরের সামনে পাঠা বলি দেওয়া হয়। আর সেই পাঠার মাংস রান্না করা হয় নিরামিষ উপায়ে। তাই রোজকার পিঁয়াজ রসুন সহযোগে পাঠার মাংস রান্নার পরিবর্তে এবার এই কালী পুজোর মরসুমে ঘরে বানিয়ে ফেলুন নিরামিষ পাঠার মাংস।

এই পদটি রান্না করার জন্য যে যে উপকরণগুলি লাগবে তা হল – কচি পাঠার মাংস, আলু, ঘি, সর্ষের তেল, নুন, বিট নুন, পাঁচফোড়ন, এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ, তেজপাতা, হলুদ গুঁড়ো, আদা বাটা, ধনে গুঁড়ো, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো, কাচা লঙ্কা, চিনি, দই এবং গরমজল।

প্রথমে মাংসগুলিকে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর মাংসের মধ্যে পরিমান মত নুন, হলুদ ও আদা বাটা দিয়ে ভালো করে ম্যারিনেট করতে হবে। এরপর দই দিয়ে তা ভালো করে মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে দুই ঘন্টা রেখে দিতে হবে। এরফলে মাংসের ভিতর নুন প্রবেশ করবে। দুই ঘন্টা পর উনুনে কড়াই বসিয়ে তাতে তেল দিন। তেল গরম হলে তার মধ্যে ফোঁড়ন দিতে হবে তেজপাতা, এলাচ, লবঙ্গ, দারচিনি। এরপর ফোঁড়ন ভালো করে ভেজে তাতে শুধুমাত্র ম্যারিনেট করা মাংসের টুকরোগুলি তেলের মধ্যে ছেড়ে দিতে হবে।

এরপর সেটিকে ১৫ মিনিট নাড়াচাড়া করতে হবে। এরপর আগুন কমিয়ে ১ ঘন্টার জন্য ঢেকে দিন। মাঝে একটু দেখে নিতে হবে মাংস কড়াইতে যাতে লেগে না যায়। এক ঘন্টা পরে মাংসের মধ্যে সিদ্ধ করে রাখা আলুর টুকরো, নুন লাগলে পরিমান মতন, ধনে গুঁড়ো, শুকনা লঙ্কা গুঁড়ো, হলুদ, ঘি এবং গরম করে রাখা জল দিয়ে দিতে হবে। এরপর ২০ মিনিট পর আগুন নিভিয়ে দিন। তৈরি হয়ে গেলো নিরামিষ পাঠার মাংস।

Related Articles

Back to top button