অফবিটনিউজ

বাবা জেলবন্দি, পালিয়ে গেছে মা, শুধু মাত্র পোষ্য কুকুর ছেড়ে যায়নি ফুটপাতে নেমে আসা কিশোরকে

বাবা কোনো এক অপরাধে বন্দী কারাগারে, মা তাকে ছেড়ে চলে গিয়েছে। শুধু সঙ্গ ছেড়ে যায়নি পোষা কুকুরটি। দিন রাত তার সঙ্গেই থাকে, ঘুমায় এবং তাকে পাহাড়া দেয় পোষ্য ড্যানি। এমনই একটি ঘটনা নজরে এসেছে উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরের এক ফুটপাত ঘিরে। একটি বাচ্চা ছেলের এমন এক কাহিনি সামনে এসেছে। তার যখন মাথার উপর থেকে ছাদ সরে যায় তখন তার সবকিছু বোঝার ক্ষমতা হয়নি। তার বাড়ি কোথায় তাও সে জানে না। শুধু এটুকু মনে আছে তার নাম অঙ্কিত। বাবা ও মা যখন তাকে ছেড়ে চলে গিয়েছে তখন তার পাশে ছিল তার পোষা কুকুর।

কুকুর ড্যানিকে নিয়েই উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরের এক ফুটপাতে পাতলা একটি কম্বল জড়িয়ে ঘুমায় ৯ থেকে ১০ বছর বয়সী অঙ্কিত। যেই ছেলেটি একসময় আর পাঁচটা বাচ্চার মতন স্কুলে যেতো, খেলাধুলা করত, এখন সে পেটের খাবার জোগাতে কখনও বেলুন বিক্রি করে তো কখনও চায়ের দোকানে কাজ করে। চায়ের দোকানের মালিক প্রশংসা করেছেন অঙ্কিত ও তার পোষ্য ড্যানির। চায়ের দোকানের মালিক জানিয়েছেন ড্যানি কখনও অঙ্কিতের সঙ্গ ছাড়ে না। অঙ্কিত দোকানের ভিতর কাজ করলে সে দোকানের এক কোনে বসে থাকে। অঙ্কিতেরও কখনও চুরি করার স্বভাব নেই।

সে নিজের বা ড্যানির খাবার উপার্জনের টাকা থেকেই কেনে। কখনই সে চেয়ে খাবার খায় না। কিছুদিন আগে ড্যানি ও অঙ্কিতের ফুটপাতে শুয়ে থাকার একটি ছবি ভাইরাল হয় নেট দুনিয়ায়। এরপর সমস্ত কাহিনি প্রকাশ্যে আসে। শেষে স্থানীয় প্রশাসনকে ওই কিশোরের খোঁজ করার নির্দেশ দেন মুজফফরনগরের এসএসপি অভিষেক যাদব। গত সোমবার পুলিশ অঙ্কিত ও তার পোষ্যের খোঁজ পায়। তাকে বর্তমানে জেলা পুলিশের কাছেই রাখা হয়েছে।

এরপর সংলগ্ন জেলাগুলিতে অঙ্কিতের ছবি পাঠানো হয়েছে। এছাড়া সেইসব জেলার মহিলা ও শিশু কল্যাণ বিভাগকেও খবর দেওয়া হয়েছে। শীলা দেবী নামক এক অঙ্কিতের পরিচিত স্থানীয় মহিলার বাড়িতে কিশোরের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া তার সম্পূর্ণ খোঁজ না মেলা পর্যন্ত তার যাবতীয় পড়াশোনার খরচার ব্যবস্থা করবে প্রশাসন।

Related Articles