বিনোদন

ভাইজানের ডাকে নারাজ রূপঙ্কর! ‘বিগ বস’-এর বিপুল টাকার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলেন শুধুমাত্র এই বিশেষ কারণে

রূপঙ্কর বাগচী একজন একজন বিখ্যাত গায়ক, যাকে মোটামুটি সবাই চেনেন। তার থেকেও বড় কথা ইনি সোশ্যাল মিডিয়ার একজন অত্যন্ত বিতর্কিত মুখ। বিখ্যাত গায়ক কেকে-র মৃত্যুর আগে তাকে নিয়ে খারাপ মন্তব্য করায় তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের বেগে ভাইরাল হয়ে যান। কেকে-র মৃত্যুর জন্য অনেকে রূপঙ্কর বাগচীকেই দায়ী করেন। তারপর থেকে নেটিজেনদের মধ্যে তাকে নিয়ে বিতর্ক লেগেই ছিল। যদিও তিনি পুরনো বিতর্কতা, ভুলে নতুন করে শুরু করার চেষ্টা করছেন।

এরপর রূপঙ্কর বাগচী জানালেন তার কাছে বিগ বসে অংশ নেওয়ার সুযোগ এসেছিল। বিপুল টাকার বিনিময়ে তাকে বিগ বসে অংশ নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল।কিন্তু তিনি সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। আসলে তিনি পুজোর সময় নিজের পরিবারকে ছেড়ে যেতে রাজি নন। তার কাছে টাকার থেকেও তার পরিবার বেশী। তিনি বলেন, কিছুদিন আগেই তার কাছে বিগ বসের ফোন আসে। সেখানে তিন মাস ফোন ছাড়া থাকতে হবে। বাড়ির সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা যাবে না। পুজোর সময় পরিবার ছাড়া থাকা তার কাছে অসম্ভব। তাই তিনি বিপুল অঙ্কের টাকার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতেও পিছ পা হন নি।

এ প্রসঙ্গে তিনি ছোটবেলার পুজোর কথা শেয়ার করেছেন। তিনি ছোটবেলায় শ্যাম বাজারে থাকতেন। তাদের পাড়ার পুজো হলো শ্যামবাজার লেডিস পার্ক। এছাড়াও তিনি বাগবাজার সর্বজনীন, হেদুয়া, কলেজ স্কোয়ার সব ঘুরে ঘুরে ঠাকুর দেখতেন। কলেজে পড়ার সময় বন্ধুদের সাথে প্যান্ডেল হপিং এ বেরোতেন। যদিও সারারাত ঠাকুর দেখতেন না। রাত ১ টার মধ্যেই বরি ঢুকে যেতেন তিনি। পুজোর সময় পাড়ায় পাড়ায় নাটক শো করতেন তিনি। এখনো দেশে বিদেশে গানের শো থাকে তার। এ বছর পুজোতে তিনি বেঙ্গালুরুর অনুষ্ঠানে থাকবেন। কলকাতার পুজোতে তার প্রায় থাকাই হয় না। যদিও তাতে তার কোনো আক্ষেপ নেই। পুজোর এতো বার বাড়ন্ত প্যান্ডেল তার ভালো লাগে না। আগেকার দিনের সাবেকি পুজোই তার বেশি ভালো লাগত। তবে বাঙালি মানেই পুজোর প্রেম। সে বিষয়ে তার কোনো স্মৃতি নেই বলেই জানিয়েছেন। তার বন্ধুরা নাকি পাড়ার একই মেয়ের উপর প্রেমে পড়েছিল।

সুতরাং ওই মেয়ে বেরোলেই পিছন পিছন তার বন্ধুরা বেরত। তিনি কোনোদিন মেয়েটির মুখের দিকেও তাকান নি। কারণ তার বন্ধু বলেছিল ওর আশে পাশে দেখলেই নাকি হাড় গুঁড়ো গুঁড়ো করে দেবে!

Related Articles