নিউজলাইফ স্টাইল

বাবা হলেন সলমন, ঘরে লক্ষ্মীর আগমনে আনন্দে আত্মহারা পরিবার

ভারতে এমন অনেক পরিবার রয়েছে যারা মনে করেন তাদের পরিবারে কন্যা সন্তান জন্মানো একটি ‘বোঝা’। যদিও প্রাচীন কাল থেকেই এই ভাবনা বদ্ধমূল হয়ে গিয়েছে। মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়। কিছু সমাজ মনে করে মেয়ে জন্মানো একটি বোঝা যা একটি পাপের সমান। দিন যত এগিয়েছে তত সমাজে বসবাসকারী মানুষের চিন্তাভাবনা পাল্টেছে। তাই ক্রমে ছেলেদের সঙ্গে মেয়েদের সমানে সমানে তুলনা চলছে। রান্নাঘর ও চার দেওয়াল থেকে বেরিয়ে মেয়েরা আজ পড়াশোনা শিখছে, চাকরি করছে, দেশ সামলাচ্ছে।

তাই যুগের পরিবর্তন যত ঘটছে ততই মেয়েদের প্রসার বাড়ছে। কিন্তু তবুও কিছু সমাজ সেই প্রাচীন ধারণা থেকে আজও বেরোতে পারেনি। এখনও অনেক সমাজে মেয়ে জন্ম হলে মন খারাপ করেন তারা। তবে এই সমস্ত নেতিবাচক ঘটনা যেমন রোজকার দিন ঘটে চলেছে সেরকম ইতিবাচক ঘটনাও ঘটছে। আর সেই ইতিবাচক ঘটনা শুনলে মন ভালো না হয়ে পারে না। সম্প্রতি পাঞ্জাবের গোয়ালিয়রে এক সেলুনের মালিক সলমনের ঘরে একটি মেয়ে জন্মগ্রহণ করে।

আর তিনি সেই খুশি উদযাপন করতে এক নতুন পন্থা ভাবেন। আর সেই নতুন পন্থার মাধ্যমে তিনি সকলকে অনুপ্রাণিত করেছেন যার ফলে তার উদযাপন আজ গোটা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। তিনি সকলকে একটি বার্তাই দেন যে পরিবারে পুত্র সন্তান জন্ম নিলে যেমন আনন্দ উদযাপন করা হয় একইভাবে কন্যা সন্তান জন্ম নিলেও তাই করা উচিত।

সলমনের মেয়ে জন্ম হয় গত ২৬শে ডিসেম্বর ২০২০ সালে। আর এরপর তিনি ঠিক করেন সেই আনন্দ উপলক্ষে বিনামূল্যে একদিন তিনি সকলের কাজ করে দেবেন। তাই তিনি তার সেলুনের দোকানের সামনে একটি পোস্টার টানিয়ে লিখে দেন ৪ঠা জানুয়ারি যারা সেলুনে আসবেন তাদের তিনি বিনামূল্যে কাজ করে দেবেন। সেদিন সলমনের দোকানে গ্রাহকেরা আসেন ও তার মেয়ের জন্য শুভকামনা জানিয়ে যান। সলমন এই কাজের মাধ্যমে ইতিবাচক ভাবনা প্রসার করেছেন যা সত্যিই প্রসংশার যোগ্য।

Related Articles