নিউজ

পরকীয়া প্রেম করায় স্ত্রীর হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করলেন স্বামী

এবার স্ত্রীর পরকীয়ার কথা জানতে পারায় তার হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করে দিলেন তার স্বামী। এই ভয়ঙ্কর ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের নরসিংদীতে। এই ঘটনার পর এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করেছে নরসিংদী থানার পুলিশ। অভিযুক্তের নাম বিষ্ণু সূত্রধর। বুধবার বিকেলে অভিযুক্ত বিষ্ণু সূত্রধর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন যে তিনি তার স্ত্রী পরকীয়া প্রেম করায় তার হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন। তিনি এটিও জানান যে ওই ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি এই কাজটি ঘটিয়েছেন।

গত সোমবার রাত ৩ টে নাগাদ স্ত্রী দীপা সূত্রধরের হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করে দেন স্বামী বিষ্ণু সূত্রধর। জানা গিয়েছে দীপা সূত্রধর পশ্চিম কান্দাপাড়া এলাকার বিজিবির অবসরপ্রাপ্ত সদস্য দিলীপ সূত্রধরের মেয়ে। দীপার পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে দীপার বাবা দিলীপ সূত্রধর সম্প্রতি বিজিবির সদস্য পদ থেকে অবসর নিয়েছেন। এছাড়া তিনি পেনশন হিসেবে কিছু টাকাও পেয়েছেন। এই টাকার ওপরই লোভ জন্মায় দীপার স্বামী বিষ্ণু সূত্রধরের। এরপর বিষ্ণু সূত্রধর তার শ্বশুরবাড়ির কাছে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু দীপার বাবা এই কথায় অস্বীকৃতি জানান।

এরপর সোমবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে বিষ্ণু তার শ্বশুরবাড়ি নরসিংদী পশ্চিম পাড়ায় আসেন। বিষ্ণুর বাড়ি কুড়িগ্রামে। এরপর সোমবার রাতে শ্বশুরবাড়িতে খাওয়াদাওয়া সেরে রাত ১টা অবধি আড্ডা দেন বিষ্ণু। রাত ৩টের দিকে হঠাৎই বিষ্ণু একটি চাপাতি দিয়ে আকষ্মিকভাবে তার স্ত্রী দিপার ডান হাতের বাহু থেকে কেটে বিচ্ছিন্ন করে দেন। এই ঘটনার পর দিপার ছোট ভাই রাজীব চন্দ্র সূত্রধর নরসিংদী সদর মডেল থানায় বিষ্ণু সূত্রধরকে আসামি করে হত্যার চেষ্টা মামলা করেন।

ওইদিন রাতেই অভিযুক্ত বিষ্ণুকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বিষ্ণু তার স্ত্রীর হাত কাটার সময় তার স্ত্রী দিপা চিৎকার করলে চাপাতির কোপ মুখের ডান গালে ও বাম হাতে লাগে। আর সেখানের মাংস কিছুটা কেটে যায়। এই ঘটনার পর দিপার বাবা দিলীপ সূত্রধর মা অরুণা সূত্রধর ও ভাই রাজীব চন্দ্র সূত্রধর দিপাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করেন।

Related Articles