ভাইরাল ভিডিও

ভোজপুরি গান যেনো অ্যাডাল্ট ছবির আরেক নাম, অশ্লীলতার চরম সীমা অতিক্রম করেছে চন্দন চঞ্চলের এই গানটি

বর্তমানে বলিউড ও দক্ষিণ ইন্ডাস্ট্রির পাশাপাশি ভোজপুরি ইন্ডাস্ট্রি ও মাঝে মাঝে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসে। গত কয়েক বছরে ভোজপুরি ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। মাঝে মাঝেই দেখা যায় ভোজপুরি সিনেমার গান বা ডায়লগ সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে।

ইউটিউবের ট্রেন্ডিং তালিকায় প্রায়ই ভোজপুরি গানগুলো জায়গা করে নেয়। ভোজপুরি নায়কদের জনপ্রিয়তা এখন প্রায় আকাশ ছুঁয়েছে। একাধিক ভোজপুরি অভিনেত্রী তাদের দুর্দান্ত সাহসী পারফরম্যান্স দেখিয়ে রাতের ঘুম কেড়ে নেয় নেটিজেনদের। তবে জনপ্রিয়তা হাসিল করতে গিয়ে মাঝে মাঝে লজ্জার সমস্ত সীমা অতিক্রম করে ফেলে এই সমস্ত ভোজপুরি ভিডিও। আর তাই নিয়ে চলছে প্রতিবাদ

এক সময় বলিউডের পরেই যে ইন্ডাস্ট্রি মানুষের সবথেকে জনপ্রিয় ছিল তা হলো ভোজপুরি। এই সময়তা ছিল ভোজপুরি ইন্ডাস্ট্রির স্বর্ণযুগ। কিন্তু আরো, আরো বেশি জনপ্রিয়তার শিখরে উঠতে গিয়ে ভোজপুরিতে শুরু হয় নানা সব অশ্লীল গান এবং তার সঙ্গে অশ্লীল ভিডিও। এই সব ভিডিও গুলিতে পারিবারিক জীবনেরই সম্পর্ক নিয়ে তৈরি হয় অশ্লীল গান। পরিবারের সাথে তো দূরে থাক মাঝে মাঝে এ সমস্ত ভিডিও একা দেখতেও লজ্জা লাগে। সম্প্রতি চন্দন চঞ্চলের সেরকম একটি ভিডিও নিয়ে ব্যাপক প্রতিবাদে নেমেছে সাধারণ মানুষ।

সম্প্রতি ইউটিউবে রিলিজ করেছে চন্দন চঞ্চলের ভোজপুরি গান “দেবরা ধোধি চাটনা বা”। রিলিজের সাথে সাথে এই গানটি ইন্টারনেটে ঝড় তুলেছে। কিন্তু গানটির বিষয়বস্তুর সাথে সাথে গানের ভিডিওটাই এতই অশ্লীল যে কারো সাথে বসে দেখা যায় না। এই কারণে গানটির মধ্যের বিষয়বস্তু নিয়ে নেটিজেনরা ব্যাপক প্রতিবাদ করছেন। ভোজপুরি থেকে এই ধরনের অযাচিত অশ্লীলতা বন্ধ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি অব্দি দেওয়া হয়েছে। একদিকে ইউটিউবে সুপারহিট এই সমস্ত গান, অন্যদিকে মানুষ রাস্তায় নেমে এর বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে। এই টানা পোড়েনের মধ্যে ভোজপুরি ইন্ডাস্ট্রি কোন দিকে যায় সেটাই দেখার।

Related Articles